যুক্তরাজ্যের নতুন প্রধানমন্ত্রী হলেন লিজ ট্রাস

বৃটেনে নতুন প্রধানমন্ত্রী লিজ ট্রাস। তাকে কিছুক্ষণ আগে প্রধানমন্ত্রী নিয়োগ করেছেন রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথ। এর আগে রানীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করে পদত্যাগপত্র পেশ করেন বরিস জনসন।

তার পদত্যাগপত্র গ্রহণ করেছেন রানী। এরপরই স্কটল্যান্ডে অবস্থিত বালমোরাল ক্যাসেল ত্যাগ করেন জনসন। তার কয়েক মিনিট পরেই বালমোরালে প্রবেশ করেন লিজ ট্রাস। সেখানে রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথের সঙ্গে গ্রিন রুমে সাক্ষাৎ করেন তিনি।

সোমবার ক্ষমতাসীন কনজার্ভেটিভ দলের নেত্রী নির্বাচিত হন লিজ ট্রাস। এরপর আজ রানীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। সে সময়ই নিয়ম অনুযায়ী তাকে প্রধানমন্ত্রী নিয়োগ করেন রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথ।

সেখান থেকে সরাসরি ১০ ডাউনিং স্ট্রিটে যাওয়ার কথা তার। এর মধ্য দিয়ে বৃটেনের তৃতীয় নারী প্রধানমন্ত্রী হলেন তিনি। প্রথম নারী প্রধানমন্ত্রী ছিলেন মার্গারেট থ্যাচার। দ্বিতীয়জন তেরেসা মে। আর তৃতীয় হলেন লিজ ট্রাস।

গত ছয় বছরের মধ্যে কনজারভেটিভ পার্টির চতুর্থ প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ব্রিটেনের দায়িত্ব নিয়েছেন লিজ ট্রাস। সরকার গঠনের জন্য ৯৬ বছর বয়সী ব্রিটিশ রানির অনুমতির প্রয়োজন হওয়ায় মঙ্গলবার রাজপরিবারের স্কটিশ বাড়ি বালমোরাল ক্যাসেলে উড়ে যান তিনি। সেখানে আনুষ্ঠানিকভাবে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী এবং ট্রেজারির প্রথম লর্ড হিসাবে নিয়োগের সময় রানির হাতে চুম্বন করেন লিজ ট্রাস।

তিন বছরের টালমাটাল ক্ষমতার পর পদত্যাগে বাধ্য হওয়া সাবেক প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের স্থলাভিষিক্ত হয়েছেন লিজ ট্রাস। বাকিংহাম প্যালেসের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, রানি এলিজাবেথ আজ লিজ ট্রাস এমপিকে শুভেচ্ছা এবং নতুন প্রশাসন গঠনের জন্য তাকে অনুরোধ জানিয়েছেন।

‘লিজ ট্রাস রানির প্রস্তাব গ্রহণ করেন এবং প্রধানমন্ত্রী ও ট্রেজারির প্রথম লর্ড হিসাবে নিয়োগের সময় তার হাতে চুম্বন করেন।’

দেশটির নতুন এই প্রধানমন্ত্রী ব্রিটেনে যুদ্ধ-পরবর্তী যেকোনো নেতার তুলনায় সবচেয়ে কঠিন কিছু সমস্যার মুখোমুখি হবেন। কারণ দেশটিতে ইতোমধ্যে মুদ্রাস্ফীতির হার দুই সংখ্যার ঘরে পৌঁছেছে, বেড়েছে জ্বালানির দাম। পাশাপাশি চলমান অর্থনৈতিক সংকট আরও তীব্র হতে পারে বলে সতর্ক করে দিয়েছে দেশটির কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

ব্যাংক অব ইংল্যান্ড চলতি বছরের শেষ নাগাদ যুক্তরাজ্য দীর্ঘায়িত এক মন্দার কবলে পড়তে পারে বলে সতর্ক করে দিয়েছে। যদিও নতুন প্রধানমন্ত্রী লিজ ট্রাস শুল্ক হ্রাসের মাধ্যমে অর্থনীতিকে চাঙ্গা ও জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধির লাগাম টানতে প্রায় ১০০ বিলিয়ন পাউন্ড আর্থিক বাজারে ছাড়ার পরিকল্পনা করেছেন।

আরও পড়ুন