ঢাকা    ৭ই ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ২২শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ



বাড়ি বাড়ি গিয়ে নৌকায় ভোট চাচ্ছেন নায়ক সাইমন

প্রকাশিত: ৫:০২ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২৫, ২০২১

বাড়ি বাড়ি গিয়ে নৌকায় ভোট চাচ্ছেন নায়ক সাইমন

বিনোদন ডেস্ক- চিরচেনা কাঁচা-পাকা মেঠোপথ ধরে এ রাত-দিন এক করে কিশোরগঞ্জ সদরের মহিনন্দ ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে নির্বাচনের প্রচারণার গণসংযোগ করছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রাপ্ত নায়ক সাইমন সাদিক। তবে সিনেমার কোনো শুটিংয়ের কাজে নয়।

 

আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পেয়ে নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছে সাদেকুর রহমান। নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করছেন। আর সাদেকুর রহমান হচ্ছে চিত্রনায়ক সাইমন সাদিক এর বাবা। তিনি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী বাবাকে জেতাতে গ্রামের বাড়িতে থেকে ব্যস্ত সময় পার করছে।

 

এলাকায় নায়ক সাইমনের উপস্থিততে বেশ উচ্ছাসিত সাধারণ জনগণ। তার এমন প্রচারণা ও গণসংযোগ কাজের সুবাদে একনজর দেখতে ভিড় করছেন বিভিন্ন বয়সের কৌতূহলী নারী-পুরুষ। তার এমন প্রচারণা ও গণসংযোগ কাজ সবার নজর কাড়ছে।

 

বর্তমান সরকারের সামাজিক-সামগ্রিক উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রাখলে সাধারণ মানুষের ভাগ্যের চাকাও ঘুরবে— এমন পরিবর্তনের আশ্বাস দিয়ে পাড়া-মহল্লার প্রতিটি ঘরে গিয়ে নৌকা প্রতীকে ভোট চাচ্ছেন তিনি।

 

বাবার নির্বাচনী প্রচারের জন্য সাইমন নিজে ‘বায়া দে’ শিরোনামে একটি গানও লিখেছেন। গানে কণ্ঠ দিয়েছেন এবং মিউজিক করেছেন তারই বন্ধু শাহরিয়ার রাফাত।

 

আগামী ২৮ নভেম্বর তৃতীয় ধাপে মহিনন্দ ইউপির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সেই নির্বাচনে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন চিত্রনায়ক সাইমনের বাবা মো.সাদেকুর রহমান।

 

আগামী ২৮ নভেম্বর তৃতীয় ধাপে মহিনন্দ ইউপির নির্বাচন হবে। নির্বাচনে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন ছাদেকুর রহমান। দীর্ঘ বিরতির পর আবারও রাজনীতিতে ফিরেছেন তিনি।

 

সাইমন সাদিক জানান, ‌‘১৯৯২ সাল। আমি তখন ছোট। আব্বু এই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ছিলেন। তখন থেকেই বিষয়টি খুব উপভোগ করি। আমার এলাকার মানুষ অত্যন্ত সহজ-সরল। তারা এটাও বোঝেন, এলাকার উন্নয়ন আসলে কার মাধ্যমে হবে। ইনশাল্লাহ, আমার বাবা জয়ী হবেন।’

 

চিত্রনায়ক হিসেবে নির্বাচনি প্রচারণার অনুভূতি জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমি আসলে কর্মক্ষেত্রেও নিজেকে নায়ক মনে করে চলি না। আর আমার গ্রামে বা ইউনিয়নে তো নিজেকে নায়ক ভাবার প্রশ্নই ওঠে না। জায়গাটা আমার, এই আলো-বাতাসেই আমি বড় হয়েছি। এখানে গ্রামের ছেলের মতোই সবার সঙ্গে চলাফেরা করি। তারপরও যেহেতু আমি অভিনেতা, সে কারণে সবার একটা অন্যরকম ভালোবাসা কাজ করে। আমি ভোট চাইতে যাচ্ছি, অনেকে আমার সঙ্গে সেলফি তুলছেন। এটা অন্যরকম অনুভূতি।’