ডিমের হালি ৫০ টাকা

দেশের বাজারে অন্যান্য পণ্যের দাম বৃদ্ধির পাশাপাশি এবার বেড়েছে ব্রয়লার মুরগির ডিমের দর। প্রতি হালি ডিম বিক্রি হচ্ছে ৫০ টাকায়। এত টাকা দিয়ে ডিম খেয়েছেন বলে মনে করতে পারছেন না রাজধানীবাসী।

এর মধ্যে জ্বালানি তেলে দাম বাড়ায় এর প্রভাব অন্যান্য সেক্টরের মতো ডিমের বাজারেও পড়বে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

শুক্রবার (১২ আগস্ট) রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা ঘুরে এই তথ্য পাওয়া গেছে।

জানা গেছে, প্রতি হালি হাঁসের ডিম ৬০ এবং ফার্মের মুরগির ডিম প্রতি হালি ৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। প্রতি হালি দেশি ডিমের জন্যে গুনতে হচ্ছে ৬০ টাকা।

যাত্রাবাড়ীর বৌ বাজার ঘুরে জানা যায়, ব্রয়লার ডিমের হালি বিক্রি হচ্ছে ৫০ টাকা, ডজন ১৪০-৪৫ টাকা। গত সপ্তাহে ডিমের ডজন ছিল ১২০ টাকা আর হালি ৪০ টাকা।

জাইম এন্টারপ্রাইজের স্বত্বাধিকারী মোবারক সরকার জানান, একশত ডিম গত সপ্তাহে পাইকারি ছিল হাজারের নিচে। কিন্তু এখন ১১৪০ টাকায় কিনতে হচ্ছে। সেজন্য আজ ডিমের দাম বাড়তি। ডজন বিক্রি করছি ১৪০ টাকায়। গত সপ্তাহে আমরা ১২০ টাকায় ডজন বিক্রি করেছি।

পার্শ্ববর্তী লাকি এন্টারপ্রাইজে গিয়ে ডিমের ডজন কত জিজ্ঞেস করতেই ক্যালকুলেটর দিয়ে হিসেব করে জানালেন, ডজন ১৪৫ টাকা আর হালি ৫০ টাকা।

এদিকে, জ্বালানি তেলের দাম বাড়ার সাথে সাথেই চড়া সবজির বাজার। প্রায় সব সবজির দামই কমবেশি বেড়েছে।

যাত্রাবাড়ী সবজি বাজারে গিয়ে দেখা যায়, সিমের কেজি বিক্রি হচ্ছে ২০০ টাকায়। কাঁচা মরিচের কেজি ২০০-২২০ টাকা। গত সপ্তাহের ১২০ টাকা কেজির চায়না গাজর বিক্রি হচ্ছে ১৪০ টাকায়। আর দেশি গাজর ছিল ৮০ টাকা, আজ বিক্রি হচ্ছে ১০০ টাকায়।

ঢেড়শের দাম বেড়েছে কেজিতে ১৪-১৫ টাকা। গত সপ্তাহে ঢেড়শের কেজি ছিল ২৫-২৬ টাকা, আজ পাইকারি বাজারে ৩৫ টাকায় কেজি এনে খুচরা বাজারে বিক্রি হচ্ছে ৪০ টাকায়।

যাত্রাবাড়ীর খুচরা বাজারের সবজি বিক্রেতা নাসির উদ্দিন জানান, সবজির দাম ওঠানামা করে। গত সপ্তাহে সিম বিক্রি করেছি ২৪০ টাকায়। আজ বিক্রি করছি ২০০ টাকায়।

তিনি বলেন, আমরা যে খুব বেশি লাভ করি, তা নয়। বাজারে সবজির দাম ওঠানামা করছে। তবে, এটা সত্য যে, আগের তুলনায় দাম বেড়েছে। পাইকারি বাজার থেকে সবজি কিনতে গেলে তারা জানায়, তেলের দাম বাড়ায় পরিবহন খরচ বেড়ে গেছে। আমাদেরও তাই বেশি দামে কিনতে ও বিক্রি করতে হচ্ছে।

আরও পড়ুন