সর্বশেষ সংবাদ

তিশা থেকে জয়া আহসান, কপালে বাঁকা টিপের সেলফির রহস্য কী?

আবহমানকাল থেকেই উৎসব-পার্বণ ছাড়াও বাঙালি মহিলাদের কপালে শোভা পায় নানা রঙের টিপ। মেয়েদের কপালে জ্বলজ্বলে লাল টিপ সাজসজ্জায় গুরুত্বপূর্ণ অনুষঙ্গ হয়ে উঠেছে। সেই টিপই এবার হয়ে উঠেছে নির্যাতনের বিরুদ্ধে মহিলাদের প্রতিবাদের ভাষা। সোশ্যাল মিডিয়াতে, ছড়িয়ে পড়েছে সেই ছবি।সেখানে কপালের ঠিক মাঝখানে নয়, একটু সরিয়ে টিপ দিয়ে দেওয়া হচ্ছে সেলফি। সেই তালিকায় সমাজকর্মী, সোশ্যাল ইনফ্লুয়েন্সারদের মতই নাম লিখিয়েছেন অভিনেত্রীরাও।

প্রতিবাদের ভাষা
বাড়ছে মহিলাদের ওপর নির্যাতন। এই সময়েই সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে মহিলাদের কপালের বাঁকা টিপের সেলফি। তবে, এটা কোনও ট্রেন্ড নয়। এটা মহিলাদের ওপর নির্যাতনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ। ‘আমার প্রতিবাদের ভাষা #OddDotSelfie’ লিখে চলছে এই প্রতিবাদ।

এই প্রতিবাদে সাড়া দিয়েছেন বাংলাদেশের অভিনেত্রী সারা যাকের, জয়া আহসান, নুসরাত ইমরোজ তিশা, নাবিলারা এবং সোশাল ইনফ্লুয়েন্সাররাও। সাধারণত যে জায়গায় টিপ পরা হয় তার থেকে একটু দূরে তা পরে সেলফি তুলছেন তাঁরা। তাঁরাও অন্যদেরকেও এই প্রতিবাদে যোগ দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।

চাই পূর্ণ মর্যাদা
জয়া মনে করেন, ঘরে-বাইরে নানাভাবে নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন মহিলারা। তাই মহিলা হিসাবে এই নির্যাতনের প্রতিবাদ জানাতে সবাইকে এগিয়ে আসার জন্যও বলেছেন তিনি। জয়া আহসান তাঁর ফেসবুকে লিখেছেন, ‘কপালে টিপ দিয়ে আমরা নারীরা নিজেদের শোভন করে তুলি। সোশ্যাল মিডিয়ায় আমাদের টিপ পরা হাসি হাসি মুখের ছবিতে লাইক পড়তে থাকে। কিন্তু ঘরের ভেতরেও কি আমাদের সবার ছবিটা এই রকম? দেশে প্রতি তিনজন নারীর একজন সহিংসতার শিকার হচ্ছে।’

এর ফলে টিপ স্খলিত হয়ে ‘তাদের শোভন সৌন্দর্য’ রক্তে মেখে যাচ্ছে বলেও উল্লেখ করে জয়া লিখেছেন, ‘আসুন, আমরা নারী নির্যাতনের প্রতিবাদ করি। কপালের টিপ সরিয়ে সেলফি তুলি, আর #OddDotSelfie লিখে শেয়ার করি সোশ্যাল মিডিয়ায়। মেয়েরা বাঁচুক মানুষের পূর্ণ মর্যাদায়।’

প্রতিবাদে সামিল
সম্প্রতি ফেসবুক ও ইনস্টাগ্রামে সেলফি পোস্ট করে এই প্রতিবাদ শুরু করেছেন মহিলারা। ইনফ্লুয়েন্সার নাজিবা নওশিন বলেন, ‘মন ভালো থাকলে আমরা টিপ পরি। এটা আমাদের কালচার। কপালের সেই টিপ সরিয়ে দিয়ে নারী নির্যাতনের বিরুদ্ধে আমরা এবার প্রতিবাদ জানাচ্ছি।’

একই কথা বলেন অভিনেত্রী ও সমাজকর্মী সারা যাকের। তিনি বলেন, ‘আমাদের দেশের মহিলারা প্রতিদিন ঘরে-বাইরে নানাভাবে নির্যাতনের শিকার হচ্ছে। কিন্তু সেই অনুপাতে এটা নিয়ে কোনও প্রতিবাদই হচ্ছে না। এটাই সবাই মিলে সোচ্চার হওয়ার সময়। শুধু নিজের জন্য নয়, আশেপাশে কোনও মহিলাকে নির্যাতিত হতে দেখামাত্র প্রতিবাদ করা উচিত।’

তিশা বলেন, “আমাদের সমাজে মহিলাদের সবকিছু নীরবে সহ্য করতে শেখানো হয়। কিন্তু কিন্তু আমরা চাই, এই ট্যাবু ভেঙে আওয়াজ তুলুক প্রতিটি মহিলা। কারণ চুপ না থেকে কথা বললেই কেবল সম্ভব এইসব সহিংসতা বন্ধ করা। আর তাই, নারী নির্যাতনের প্রতিবাদ হিসেবে ‘Odd Dot Selfie’. “

আরও পড়ুন

দ্বিতীয় স্বামীর কাছে ফিরতে চাইছেন মাহিয়া মাহি?

অভিনেত্রী মাহিয়া মাহি বছর তিনেক আগে দ্বিতীয়বার বিয়ের মালা গলায় পরেছিলেন। ২০২১ সালের ১৩ সেপ্টেম্বর গাজীপুরের রাকিব সরকারকে বিয়ে করেন তিনি। তাদের ঘরে ফারিশ...

যুক্তরাষ্ট্রে গিয়ে নতুন প্রেমের কথা স্বীকার করলেন সোহানা সাবা

লম্বা সময় ধরে সিঙ্গেল মাদার হিসেবেই সময় পার করছেন দুই পর্দার দর্শকপ্রিয় অভিনেত্রী সোহানা সাবা। ব্যক্তিগত জীবনে ভালোবেসে নির্মাতা মুরাদ পারভেজের সঙ্গে ঘর বেঁধেছিলেন...

সেরা পঠিত